ঢাকা, বুধবার, ২১ আগস্ট ২০১৯ | ৬ ভাদ্র ১৪২৬

 
 
 
 

শ্রীলঙ্কার বোমা হামলায় শেখ সেলিমের নাতি নিহত

গ্লোবালটিভিবিডি ১:১০ পূর্বাহ্ণ, এপ্রিল ২২, ২০১৯

শ্রীলঙ্কার বোমা হামলার ঘটনায় আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য এবং গোপালগঞ্জ-২ আসনের সংসদ সদস্য শেখ ফজলুল করিমের সেলিমের নাতি জায়ান চৌধুরী নিহত হয়েছেন। এছাড়াও আহত হয়েছেন তার জামাতা মশিউল হোক চৌধুরী প্রিন্স।

শেখ সেলিমের ব্যক্তিগত সহকারী ইমরুল হক রাত ১১ টার কিছু পর এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি আরও জানান, এই ঘটনায় শেখ সেলিমের জামাতা মশিউল হোক চৌধুরী প্রিন্সও আহত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

এদিকে আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক সুজিত রায় নন্দীও প্রায় একই সময়ে নিহতের পরিবারকে উদ্ধৃত করে এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, ‘আমরা এখন শেখ সেলিমের বাড়ি যাচ্ছি’।

শেখ সেলিমের পরিবারের আরেক সদস্য জানিয়েছেন, হাসপাতালে চিকিৎসাধীন মশিউল হোক চৌধুরী প্রিন্সের অবস্থাও আশঙ্কাজনক।

এর আগে রবিবার ব্রুনাই সফরের প্রথম দিন দারুসসালামে এম্পায়ার হোটেল অ্যান্ড কান্ট্রি ক্লাবে প্রবাসী বাংলাদেশিদের আয়োজিত সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘শেখ সেলিমের মেয়ে, জামাই ও দুই বাচ্চা নিয়ে শ্রীলঙ্কায় গেছিলো। সেখানে মেয়ের জামাই প্রিন্স … ছেলে সাড়ে আট বছর… ওরাও গিয়েছিল.. রেস্টুরেন্টে, সেখানে বোমা পড়েছে’। এসময় প্রধানমন্ত্রী তখন পর্যন্ত জায়ান নিখোঁজ রয়েছে জানিয়ে তার জন্য দোয়া চান।

এদিকে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা সন্ধ্যায় জানান, শেখ সেলিমের জামাতা এবং নাতি শ্রীলঙ্কার ভয়াবহ বোমা হামলার ঘটনায় আহত হয়ে স্থানীয় একটি হাসপাতালে চি্কিৎসাধীন রয়েছেন। শেখ সেলিমের জামাতা, মেয়ে এবং তার দুই নাতি 'সাংগ্রি-লাই' হোটেলে অবস্থান করছিলেন।

জানা যায়, হামলার সময় হোটেলটির নিচতলার রেস্টুরেন্টে অবস্থান করছিলেন শেখ সেলিমের জামাতা মশিউল হক চৌধুরী এবং তার বড় ছেলে জায়ান চৌধুরী। নিচতলার এই রেস্টুরেন্টেই বোমা হামলা চালানো হয়। এসময় মশিউলের স্ত্রী শেখ আমেনা সুলতানা সোনিয়া এবং আরেক সন্তান জোহান হোটেলটির ৬ তলায় অবস্থান করছিলেন। তারা ভ্রমণের উদ্দেশে শ্রীলঙ্কায় গেছিলেন।

উল্লেখ্য, রবিবার খ্রিস্টানদের অন্যতম ধর্মীয় উৎসব ইস্টার সানডেতে দুই দফায় ৩টি গির্জা, অভিযাত হোটেলসহ কলম্বো ও তার আশপাশের মোট আট জায়গায় এই হামলার ঘটনায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ২০৭ এ দাঁড়িয়েছে। আহত হয়েছেন চারশ'রও বেশি মানুষ।

এমএস


oranjee