ঢাকা, রবিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯ | ৬ আশ্বিন ১৪২৬

 
 
 
 

শেষ পর্যন্ত পাওয়া গেছে জুলিয়েটকে!

গ্লোবালটিভিবিডি ১:১৪ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ০১, ২০১৯

বলিভিয়ায় প্রাপ্ত বিরল প্রজাতির ব্যাঙ ‘রোমিও’। একে একে বয়স দশ বছর পেরিয়ে গেছে তার। কিন্তু এখন পর্যন্ত সেহোয়েলসাস ওয়াটার ফ্রগ জাতীয় বিপরীত লিঙ্গের দেখা পায়নি সে। আর তাই, এই ব্যাঙের প্রজাতিকে অবলুপ্তির হাত থেকে বাঁচাতে রোমিওর জন্য জুলিয়েট খুঁজতে উদ্যোগী নেয় কোচাবাম্বা ন্যাচারাল হিস্ট্রি মিউজিয়াম কর্তৃপক্ষ।

গত বছরের ফেব্রুয়ারির দিকে একটি ডেটিং ওয়েবসাইটে রোমিওর জন্য বিজ্ঞাপন দেওয়া হয়। ১৫ হাজার ডলারের একটি তহবিলও গড়ে তোলা হয় রোমিওর জন্য। দেখতে দেখতে সে তহবিলে জমা হয় প্রায় ২৫ হাজার ডলার। কিন্তু কোথায় জুলিয়েট? রোমিওর হাতে আর মাত্র আর ৪ বছর! তবে শেষ পর্যন্ত পাওয়া গেছে জুলিয়েটকে।

না, কোন প্রেমের সিনেমার গল্প নয়! শেক্সপিয়ারের রোমিও-জুলিয়েট'র আধুনিক সংস্করণও এটা নয়। রোমিও আসলে একটি বিরল প্রজাতির পুরুষ ব্যাঙ! এটি একটি সেহোয়েলসাস ওয়াটার ফ্রগ। বলিভিয়ার বাসিন্দা। বিশেষজ্ঞদের দাবি, এই ব্যাঙ বড়জোড় ১৫ বছর বাঁচে। এখন তার বয়স প্রায় ১২ বছর! তাই বিরল এই ব্যাঙের প্রজাতিকে অবলুপ্তির হাত থেকে বাঁচাতে রোমিওর জন্য জুলিয়েট খুঁজতে উদ্যোগী হয়েছিলেন কোচাবাম্বা ন্যাচরাল হিস্ট্রি মিউজিয়াম কর্তৃপক্ষ।

রোমিওর জন্য গড়ে তোলা তহবিলের টাকায় রোমিওর প্রেমিকার খোঁজে একটি বিশেষজ্ঞ দল পাঠানো হয়েছিল বলিভিয়ার মেঘ-অরণ্যে। আর সেখানেই খোঁজ মিলেছে জুলিয়েটের। খুব শীঘ্রই রোমিও-জুলিয়েটকে মিলিয়ে দেওয়ার তোড়জোড় শুরু করে দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। রোমিও-জুলিয়েটের একে অপরকে ভাল লাগবে, এমনটাই আশা বিশেষজ্ঞদের। তাই নির্ঘাত অবলুপ্তির হাত থেকে বাঁচানো যাবে রোমিও-জুলিয়েটের প্রজাতিকে।

এমএস


oranjee