ঢাকা, বুধবার, ২০ নভেম্বর ২০১৯ | ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

 
 
 
 

৫,৩০০ বছর পুরনো বরফমানবের অস্তিত্ব উদ্ঘাটন

গ্লোবালটিভিবিডি ৫:৪২ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ০৬, ২০১৯

ছবি : ইন্টারনেট

জাবীহ্ উল্লাহ : সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে প্রায় ৩,২১০ মিটার উপরে অস্ট্রিয়া-ইতালি সীমান্তে আল্পস পর্বতমালায় একজন পর্বতারোহী মারা যাওয়ার ৫ হাজার বছরেরও বেশি সময় পরে তাকে খুঁজে পাওয়া গেছে।

১৯৯১ সালের কথা। জানা যায়, কিছু সফরকারী যখন ওই পথ ধরে যাচ্ছিলেন তখন তারা মমি হয়ে যাওয়া একজন ব্যক্তির লাশ পড়ে থাকতে দেখে। লাশটি বরফ থেকে গলে পড়া অবস্থায় ছিল। তার নাম দেয়া হয়েছে ওতজি। ৫৩০০ বছর পুরনো দেহটি গাছপালাবেষ্টিত অবস্থায় পাওয়া যায়। ওতজির উচ্চতা প্রায় ৫ ফুট ২ ইঞ্চি ছিলেন বলে মনে করা হয়। তার ওজন ছিলো ৫০ কেজি। বাদামি চোখ আর দাড়িসহ মাঝারি দৈর্ঘ্যের চুল ছিল তার।

আল্পস পর্বতমালা

মমি হয়ে যাওয়া ওতজি প্রায় ৪৫ বছর বয়সে মারা গিয়েছিলেন। গবেষকরা তার পেটে এবং পোশাকে জমে থাকা শ্যাওলা এবং লিভারওয়ার্ট নামক ছোট গাছের টুকরো চিহ্নিত করেছেন যা কমপক্ষে ৭৫ টি প্রজাতির প্রতিনিধিত্ব করে। এর মধ্যে কেবল ৩০ শতাংশ এই অঞ্চলের স্থানীয় বলে মনে করা হয়। বাকি ৭০ শতাংশ যা ছিলো তা বিজ্ঞানীদের এই সিদ্ধান্তে আসতে সহায়তা করেছে যে, তিনি আধুনিক দক্ষিণ টায়রোল, ইতালির নিম্নস্তরের স্নালস্টাল উপত্যকা দিয়ে পাহাড়ের পথে পাড়ি দিয়েছিলেন। ওতজির সাথে পাওয়া ফ্ল্যাট নেকেরা নামে একটি উডল্যান্ড প্রজাতি প্রমাণ করে যে, তাম্র যুগের বরফমানব দক্ষিণ থেকে উত্তর দিকে স্নালস্টালের উপরে আরোহণ করেছিল যা বর্তমানে একটি জনপ্রিয় স্কিইং খেলার জায়গা। এখনও সেখানে বেশ কয়েক ধরণের শ্যাওলার অস্তিত্ব রয়েছে।

ধারণা করা হচ্ছে, তিনি সম্ভবত অন্যান্য সংলগ্ন উপত্যকায় উঠে গিয়েছিলেন।

গ্লাসগো বিশ্ববিদ্যালয়ের জীববৈচিত্র্য ইনস্টিটিউটের গবেষক জিম ডিকসন বলেছেন, শৈবালগুলোকে ওতজির আশপাশে বরফ থেকে বেশিরভাগ ছোট টুকরো হিসাবে উদ্ধার করা হয়েছিল। এগুলো ‘গুরুত্বপূর্ণ তদন্তকারী চিহ্ন’ যা তার শেষ সফরের ‘সুনির্দিষ্ট রুট’ নির্ধারণে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

প্রত্নতত্ত্ব জাদুঘর

১৯৯৮ সালের পর থেকে তার দেহাবশেষ রক্ষার জন্য ওতজিকে বলজানোর দক্ষিণ তাইরোল প্রত্নতত্ত্ব জাদুঘরে বিশেষভাবে তৈরি একটি কোল্ড সেলে রাখা হয়েছে। সূত্র: স্কাইনিউজ

জেইউ/এমএস


oranjee