ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১২ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

 
 
 
 

রাজধানীতে চলছে রেজিষ্ট্রেশনবিহীন সরকারি মোটরযান

গ্লোবালটিভিবিডি ৮:৫২ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২১, ২০১৯

সংগৃহীত ছবি

আনিসুর রহমান : দেশে নতুন সড়ক পরিবহন আইন কার্যকরের পর থেকে সড়ক ও মহাসড়কে রেজিষ্ট্রেশন ও ফিটনেসবিহীন অবৈধ যানবাহনের সংখ্যা অনেকাংশেই কমে গেছে।

জনগণের মাঝে বৃদ্ধি পাচ্ছে ট্রাফিক সচেতনতা। সেই সাথে যানজটসহ দুর্ঘটনা রোধও অনেকাংশে কমে আসবে বলে মনে করেন ট্রাফিক পুলিশসহ বিআরটিএ কর্তৃপক্ষ।

তবে সাধারণ মানুষের মধ্যে আইন মানার প্রবণতা বৃদ্ধি পেলেও, সরকারি বিভিন্ন সংস্থাসহ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী বিভিন্ন মোটরযান ব্যবহারে আইন মানছে না বলে অভিযোগ উঠেছে।

বিআরটি-এর রেজিষ্ট্রেশন নাম্বারের স্থানে শুধুমাত্র ইঞ্জিন নাম্বার লিখে ট্রাফিক পুলিশসহ অন্যান্য কিছু পুলিশ সদস্যরা রাজধানীতে রেজিষ্ট্রেশনবিহীন বিভিন্ন মোটরযান ব্যবহার করে দায়িত্ব পালন করছেন। এতে করে সাধারণ মানুষের মধ্যে সৃষ্টি হয়েছে তীব্র কৌতুহলের।

রেজিষ্ট্রেশনবিহীন মোটরযান ব্যবহার আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ জেনেও, সরকারি দায়িত্ব খাতিরে অনেকসময় ব্যবহার করতে হয় বলে জানান ট্রাফিক সদস্যরা।

এ বিষয়ে ঢাকা মহানগর পুলিশের গণমাধ্যম কার্যালয়ের উপ-পুলিশ কমিশনার মাসুদুর রহমানের সঙ্গে ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, ডিএমপির অধিকাংশ গাড়ি ও মোটর সাইকেলই নতুন। তাই বিআরটিএ-এর রেজিষ্ট্রেশন পেতে কিছুটা সময় লাগছে।

বিআরটিএ-এর নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও মোটরযান পরিদর্শক জানান, আইন সকলের জন্য সমান। আইন ভঙ্গকারী যেই হোক, তাকে কোনভাবেই ছাড় দেওয়া হবে না।

তারা মনে করেন, আইন প্রয়োগকারী সংস্থাসহ সরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের কর্তাব্যাক্তিরা আর দশজন সাধারণ মানুষের মতো মোটরযান ব্যবহারে আইন মেনে চলবেন, নতুবা সড়ক পরিবহন আইনে তাদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেওয়া হবে।


এআরএস/এমএস


oranjee