ঢাকা, রবিবার, ১৭ নভেম্বর ২০১৯ | ২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

 
 
 
 

লেখাপড়ায় এগিয়ে যাচ্ছে পথশিশুরা

গ্লোবালটিভিবিডি ৩:১২ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ০৭, ২০১৯

ছবি : গ্লোবাল টিভি

খোলা আকাশের নিচে রাস্তার ল্যাম্প পোষ্টের আলোয় ফুটপাতে বসেই পড়ালেখা করছে প্রায় চল্লিশ পথশিশু। এরা কোন মধ্যবিত্ত বা ধনাঢ্য পরিবার থেকেও আসেনি। নামকরা কোন স্কুলেরও শিক্ষার্থী নয় তারা। তবে শত প্রতিবন্ধকতা পেরিয়ে লেখাপড়ায় এগিয়ে যাচ্ছে এসব শিশুরা। 

শিশু নয়ন ভ্রাম্যমাণ শরবত বিক্রেতা। আর তার সাথের সান্তনা নামের মেয়েটি ফুটপাতে মায়ের সাথে দোকান করে থাকে। ভোর থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত শিশু দুটি কাজ করে প্রতিদিন সন্ধ্যায় রাজধানীর পান্থকুঞ্জ পার্কের পাশে ফুটপাতে আসে এফএনএফ নামের একটি স্কুলে পড়তে।

শুধু নয়ন আর সান্তনাই নয়, তাদের মতো এখানে পড়ালেখা করতে আসা সবাই পথশিশু। যাদের পথেই জন্ম,পথেই বেড়ে ওঠা আর এই পথকেন্দ্রিকই কিনা তাদের কর্মপরিকল্পনা। তবে এফএনএফ স্কুলের মাধ্যমে এসব শিশুদের মানসিকতাই এসেছে বেশ পরিবর্তন। তারা আজ স্বপ্ন দেখে উজ্জ্বল ভবিষ্যতের।

ফিউচার ন্যাশন ফাউন্ডেশন সংক্ষেপে এফএনএফ স্কুলটির প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান বাংলাদেশ পুলিশের একজন সদস্য। নাম জাহিদুর রহমান তবে পথ শিশুদের কাছে জাহিদ সকাল স্যার নামেই তিনি বেশ পরিচিত। নিজ উদ্যোগে ২০১৫ সাল থেকে তিনি দুজন বন্ধুকে নিয়ে শুরু করেন এই স্কুলটি। প্রতিদিন সন্ধ্যা ৭টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত পথশিশুদের নিয়মিত ক্লাস নেন জাহিদ সকালসহ আরো চার জন শিক্ষক।

ঝড়-বৃষ্টির দিনে খোলা আকাশের নিচে এসব শিশুদের ক্লাস করতে বেশ বেগ পোহাতে হয়। তাই ছাউনি যুক্ত কোন স্থান পেলে এই সমস্যার কিছুটা সমাধান হবে বলে মনে করেন তারা।

এখানে পড়ালেখা করতে আসা সকল পথশিশুই বেশ মেধাবী। পিএসসি,জেএসসি, এসএসসি ও এইসএসসি পরীক্ষায়ও বেশ সাফল্য অর্জন করেছে এফএনএফ-এ অধ্যায়ন করা শিক্ষার্থীরা। এফএনএফ স্কুলের কার্যক্রমে সরকার বা সমাজের বিত্তবানেরা একটু সহযোগিতার হাত বাড়ালে পথশিশুরা পাবে শিক্ষার আলো। আর সে আলোয় আলোকিত করবে দেশ ও জাতিকে এমনটাই মনে করেন সুশীল সমাজ।


এমএস


oranjee