ঢাকা, শনিবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৯ | ৩০ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

 
 
 
 

শীর্ষ সন্ত্রাসী জিসানকে দেশে ফিরিয়ে আনার প্রক্রিয়া চলছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

গ্লোবালটিভিবিডি ২:২৯ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ০৫, ২০১৯

ফাইল ছবি

নিজস্ব প্রতিবেদক : সংযুক্ত আরব আমিরাতের দুবাইয়ে গ্রেফতার তালিকাভুক্ত শীর্ষ সন্ত্রাসী জিসানকে দেশে ফিরিয়ে আনার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল। তিনি বলেন, শিগগিরই তাকে দেশে ফিরিয়ে এনে আইনের মুখোমুখি করা হবে।

শনিবার (৫ অক্টোবর) সকালে রাজধানীর স্বামীবাগ এলাকার লোকনাথ মন্দিরে শারদীয়া দুর্গা পূজার মণ্ডপ পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘শীর্ষ সন্ত্রাসী জিসানকে দুবাই পুলিশের সহায়তায় গ্রেফতার করা হয়েছে। সেখানকার পুলিশের সঙ্গে আমাদের যোগাযোগ আছে। তাকে দেশে আনার প্রক্রিয়া এরই মধ্যে শুরু হয়েছে। আমরা আশা করছি, খুব দ্রুততম সময়ে তাকে দেশে ফিরিয়ে আনা হবে।

আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেন, শীর্ষ সন্ত্রাসী জিসানের বিরুদ্ধে হত্যা মামলাসহ দেশে ১১টিরও বেশি মামলা রয়েছে। তাই তাকে দেশে ফিরিয়ে এনে দ্রুত বিচার বিভাগের মাধ্যমে আইনের মুখোমুখি করা হবে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আরও বলেন, শুধু শীর্ষ সন্ত্রাসী জিসানই নয়, অপরাধী যেই হোক, কোনো ছাড় পাবে না। সে দেশেই থাকুক আর বিদেশেই থাকুক, আইনের মুখোমুখি হতেই হবে। আজ হোক, কাল হোক শাস্তি তাকে পেতেই হবে। এখনো যারা ইন্টারপোলের তালিকায় রয়েছে, এভাবে গ্রেফতারের মাধ্যমে দৃষ্টান্ত স্থাপন করা হবে।

সনাতন ধর্মাবলম্বীদের উদ্দেশে মন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ অসাম্প্রদায়িক দেশ। তার বড় প্রমাণ গত ১০ বছরে সব ধর্মের মানুষ যার যার ধর্মীয় উৎসব পালন করছেন। এতে কেনো বিশৃঙ্খলা ঘটেনি। কারণ আমাদের আইনশৃঙ্খলা বাহিনী কঠোর নজরদারি করছে। তাই কেউ যদি ধর্মকে কেন্দ্র করে কোনো সাম্প্রদায়িক উসকানির চেষ্টা করে, তা সহ্য করা হবে না। কঠোর আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।

গত বুধবার (২ অক্টোবর) রাতে দুবাইয়ে গ্রেফতার হন পুলিশের তালিকায় থাকা শীর্ষ সন্ত্রাসী জিসান আহমেদ। ২০০৩ সালে মালিবাগের সানরাইজ হোটেলে ডিবির দুই পরিদর্শককে সরাসরি হত্যা করে আলোচনায় আসেন তিনি। এরপর দীর্ঘ সময় আত্মগোপনে ছিলেন। ২০০৯ সালে কলকাতা পুলিশের হাতে আটক হন তিনি। ছাড়া পেয়ে সেখান থেকেই নিয়ন্ত্রণ করতেন ঢাকার ‘আন্ডারওয়ার্ল্ড’। ভারতীয় পাসপোর্ট নিয়ে বছর দুয়েক আগে তিনি দুবাই যান। পরে জার্মানিতেও বসবাসের সুযোগ পান বলে জানা যায়। বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন দেশে থাকলেও দেশের ‘আন্ডারওয়ার্ল্ড’ তার নির্দেশেই পরিচালিত হতো বলে জানিয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। একাধিক হত্যা ও চাঁদাবাজির মামলার এই আসামিকে ধরার জন্য বাংলাদেশ পুলিশ পুরস্কারও ঘোষণা করেছিল।

এমএইচএন/এমএস


oranjee