ঢাকা, রবিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯ | ৬ আশ্বিন ১৪২৬

 
 
 
 

সন্তানকে বাঁচাতে এক বংশীবাদক পিতার আকুতির সুর

গ্লোবালটিভিবিডি ৫:২৪ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ০৪, ২০১৯

আনিসুর রহমান : ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদের সামনে প্রতিদিন বাঁশি বাজিয়ে শ্রোতাদের মন বিমোহিত করেন বংশীবাদক রুবেল। তবে বিষাদের এসুর অনেকের মন ভরে তুললেও, রক্তক্ষরণ করে চলেছে রুবেলের গোটা মনপ্রাণ। মাত্র ৯০ হাজার টাকার অভাবে রুবেল তার ৯ বছরের শিশু সন্তান সানির পায়ের অপারেশন না করাতে পারায় হতাশায় এক মনে বাঁশি বাজিয়ে চলেছেন।

বংশীবাদক রুবেল জানেন না তার প্রিয় সন্তানটি সুস্থ হয়ে আবারো স্কুলে যেতে পারবে কিনা।

গত ২৭ জুন স্কুল শেষে বন্ধুদের সাথে বাড়ি ফিরছিল বংশীবাদক রুবেলের শিশু সন্তান সানি আহমেদ। এসময় একটি দ্রুতগতির পিকআপ ভ্যানের চাকা সানির ডান পায়ের উপর দিয়ে উঠে পড়ে। এতে তার পায়ের গোড়ালিসহ পুরো পায়ের ওপরের অংশের মাংশ কেটে আলাদা হয়ে হাড় বেরিয়ে যায়। ছেলেকে সুস্থ করে তুলতে রুবেল ধারদেনা করে ও স্ত্রীর গহনা বন্ধক রেখে প্রায় দেড় লাখ টাকা চিকিৎসায় ব্যয় করেছেন। রুবেল নিজের সামান্য আয় দিয়ে হাসপাতালে রেখে ছেলের চিকিৎসা চালাতে না পারায় তাকে নিয়ে রুবেল চলে আসেন পুরান ঢাকার সাত রওজা মাজার এলাকায় আগাসাদেক লেনে তার ভাড়া বাসায়।

বাসা থেকে শিশু সানিকে নিয়ে প্রতিদিন ঢাকা মেডিকেলের বার্ন ইউনিটে পায়ের ক্ষতস্থানে ড্রেসিং করাতে নিয়ে যান রুবেল। এতেও প্রতিদিন ৫০০ টাকা খরচ হয় তার। প্রায় দুমাস বিছানায় শুয়ে হাঁপিয়ে উঠেছে শিশু সানি নিজেও। স্বপ্ন দেখে দ্রুত সুস্থ হয়ে বন্ধুদের সাথে স্কুলে যাওয়ার।

সমাজের বিবেকবান মানুষ শিশু সানির চিকিৎসায় বাড়াবে সহযোগিতার হাত এমনটাই প্রত্যাশা সকলের‌।

এমএস


oranjee