ঢাকা, শনিবার, ১৬ নভেম্বর ২০১৯ | ১ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

 
 
 
 

রাজশাহী পরিটেকনিকের অধ্যক্ষকে পুকুরে ফেলার ঘটনার তদন্ত শুরু

গ্লোবালটিভিবিডি ১০:৩৯ পূর্বাহ্ণ, নভেম্বর ০৪, ২০১৯

ছবি সংগৃহীত

‘রাজশাহী পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের অধ্যক্ষকে টেনেহিঁচড়ে পুকুরের পানিতে ফেলে দেওয়ার ঘটনাটি চরম অবক্ষয়ের প্রকাশ। তাই এই ঘটনার দোষীদের বিরুদ্ধে সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত করা হবে।’

এমনটাই বললেন ঘটনা তদন্তে গঠিত তিন সদস্যের কমিটির প্রধান কারিগরি শিক্ষা অধিদফতরের যুগ্ন সচিব ও পরিচালক (বিআইডব্লিউ) এস এম ফেরদৌস আলম।

রবিবার সন্ধ্যায় এ কমিটির তিন সদস্য রাজশাহী পৌঁছে তদন্ত শুরু করেন। তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শনসহ অধ্যক্ষ, শিক্ষক ও ছাত্রদের সঙ্গে কথা বলেন এবং সিসিটিভির ফুটেজ দেখেন। এ পর সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন। সেখানে এক প্রশ্নের জবাবে তদন্ত কমিটির প্রধান এই মন্তব্য করেন।

এস এম ফেরদৌস আলম বলেন,আমরা সামগ্রিকভাবে বিষয়টা দেখে প্রতিবেদন দাখিল করব। আমাদের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ যারা রয়েছেন তারা অবশ্যই সিদ্ধান্ত নেবেন।

রাজশাহী পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটে শাখা ছাত্রলীগের টর্চার সেল নিয়ে প্রশ্নের জবাবে ফেরদৌস আলম বলেন, তারা তদন্ত শুরু করেছেন। অধ্যক্ষ, শিক্ষক ও ছাত্রদের সঙ্গে কথা বলেছেন। এখনই তদন্তের সব কথা বলে দিলে তো তা আর তদন্ত থাকে না। তাই সব বিষয়গুলো পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে তদন্তের পর প্রতিবেদন তৈরি করবেন। এর পরই তা প্রকাশ করা হবে।

তদন্ত শেষে তিনদিনের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিল করবেন বলেও জানান তিনি।

তদন্ত দল ক্যাম্পাসে একটি টর্চার সেলের সন্ধান পায়। পুকুরের পশ্চিম পাশের ভবনের ১১১৯ নম্বর কক্ষে এ টর্চার সেল থেকে লোহার রড, পাত ও পাইপ পাওয়া যায়। পরে সেগুলো পুলিশ হেফাজতে দেওয়া হয়। এ সময় তদন্ত কমিটির কাছে কয়েকজন শিক্ষক ও ছাত্র জানান, ওই টর্চার সেলটি ছাত্রলীগের। ওই কক্ষের সামনে ছাত্রলীগের টেন্ট। ছাত্রলীগের নেতাদের কথা না শুনলে সেখানে নিয়ে গিয়ে টর্চার করা হতো।

বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা অধিদফতরের যুগ্ম সচিব ও পরিচালক (প্রশাসন) স্বাক্ষরিত তদন্ত কমিটির আহ্বায়ক করা হয়েছে কারিগরি শিক্ষা অধিদফতরের যুগ্ম সচিব ও পরিচালাক (পিআইডব্লিউ) এসএম ফেরদৌস আলমকে। এছাড়াও কারিগরি শিক্ষা অধিদফতরের পরিচালাক (কারিকুলাম) ড. মো. নুরুল ইসলাম কমিটির সদস্য এবং রাজশাহী মহিলা পলিকেনিটক ইনিস্টিটিউটের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ ওমর ফারুককে সদস্য সচিব করা হয়েছে।

এর আগে, অকৃতকার্য শিক্ষার্থীকে পরীক্ষা দেওয়ার সুযোগ না দেওয়ায় শনিবার রাজশাহী সরকারি পলিটেকনিক ইন্সটিটিউটের অধ্যক্ষকে লাঞ্ছিতের পর পানিতে ফেলে দেওয়ার অভিযোগ ওঠে ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে।

এএইচ


oranjee