ঢাকা, রবিবার, ২০ অক্টোবর ২০১৯ | ৪ কার্তিক ১৪২৬

 
 
 
 

অযৌক্তিক দাবিতে আমি পদত্যাগ করব না : জাবি উপাচার্য

গ্লোবালটিভিবিডি ৬:১৮ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ০১, ২০১৯

ফাইল ছবি

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের একাংশ নৈতিক স্খলন ও অর্থ কেলেঙ্কারির জন্য উপাচার্য অধ্যাপক ড. ফারজানা ইসলামকে দায়ী করে তার পদত্যাগের দাবিতে আন্দোলন চালিয়ে গেলেও তিনি অযৌক্তিক দাবিতে পদত্যাগ করবেন না বলে জানিয়েছেন।

মঙ্গলবার দুপুর ২টার দিকে অধ্যাপক ফারজানা নিজ কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘আমি নিজের বিরুদ্ধে নিজে তদন্ত করতে পারি না। বিশ্ববিদ্যালয়ের সার্বিক পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করে বিষয়টির সুষ্ঠু সমাধান করতে আমি আচার্য, ইউজিসি ও শিক্ষা মন্ত্রণালয়কে জানিয়েছি। তারা যদি মনে করে তদন্ত করবে, তাহলে করতে পারে। তবে আন্দোলনের এ অযৌক্তিক দাবিতে আমি পদত্যাগ করব না।’

তিনি আরো বলেন, ‘সবাই জানে কারা আন্দোলনে ইন্ধন দিচ্ছেন। যারা আমার দ্বিতীয় মেয়াদে উপাচার্য হওয়াকে মেনে নিতে না পেরে বিএনপি এবং বামপন্থী শিক্ষকদের নিয়ে আন্দোলন করছেন, তারাই নিজেদের স্বার্থ হাসিলের জন্য পরিকল্পিতভাবে এ আন্দোলনে ইন্ধন জোগাচ্ছেন।‘

এর আগে দুপুর ১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ মিনারের পাদদেশে অধ্যাপক ফারজানার পদত্যাগের দাবিতে লাল কার্ড প্রদর্শন করেন আন্দোলনরত শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। ‘দুর্নীতির বিরুদ্ধে জাহাঙ্গীরনগর’ ব্যানারে দাবি আদায়ে সময় বেঁধে দেয়ার শেষ দিন এ কর্মসূচি পালন করা হয়।

‘দুর্নীতির বিরুদ্ধে জাহাঙ্গীরনগর’ এর অন্যতম সংগঠক আরিফুল ইসলাম বলেন, ‘এ উপাচার্য একজন দুর্নীতিবাজ, যৌন নিপীড়কের আশ্রয়দাতা ও মিথ্যাবাদী। ছাত্রলীগের সাথে তিনি প্রকল্পের টাকা সরাসরি লেনদেনে জড়িত। তিনি প্রকল্পে কমিশন বাণিজ্য করে এবং অযোগ্য প্রক্টরকে দিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের শৃঙ্খলা রক্ষায় ব্যর্থ হয়ে উপাচার্যের পদকে কলঙ্কিত করেছেন। জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের সুনাম ও ভাবমূর্তি ফিরিয়ে আনার জন্য তার অপসারণে আমরা বদ্ধপরিকর।’

উপাচার্য ফারজানা ইসলাম মঙ্গলবারের মধ্যে পদত্যাগ না করলে বুধ ও বৃহস্পতিবার সর্বাত্মক ধর্মঘট পালনের ডাক দিয়েছেন আন্দোলনকারীরা।

অন্যদিকে, উপাচার্যের বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগকারী ও চিহ্নিত দুর্নীতিবাজদের শাস্তির দাবিতে উপাচার্যপন্থী শিক্ষকদের সংগঠন ‘বঙ্গবন্ধু শিক্ষক পরিষদ’ বুধবার শহীদ মিনারের সামনে মানববন্ধন ও বৃহস্পতিবার দিনব্যাপী জনসংযোগ কর্মসূচি ঘোষণা করেছে।

এমএস


oranjee