ঢাকা, শনিবার, ৭ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

 
 
 
 

নজরুল ইসলামকে ভালোবেসে কাজ করে যাওয়া রেজা মতিনের গল্প

গ্লোবালটিভিবিডি ১২:২১ পূর্বাহ্ণ, মে ২৬, ২০১৯

ফাইল ছবি

সাংবাদিক, কণ্ঠশিল্পী ও সাংস্কৃতিক সংগঠক রেজা মতিনের জন্ম (বাংলা ১২ জ্যৈষ্ঠ /ইংরেজি ২৬ মে) পুরান ঢাকার লালবাগে। দীর্ঘ দুই যুগ সাংবাদিক পেশায় জড়িত রেজা বিভিন্ন সময়ে দেশের একাধিক শীর্ষস্থানীয় জাতীয় দৈনিক, সাপ্তাহিক ও পাক্ষিক পত্রিকায় কর্মরত রয়েছেন। এছাড়া বিদেশী পত্রিকায়ও তিনি কাজ করেছেন। 

দীর্ঘ দেড় যুগ পূর্বে গড়া দেশের শীর্ষস্থানীয় বিনোদন সাংবাদিকদের সংগঠন “CJFB ” কালচারাল জার্নালিস্ট ফোরাম অফ বাংলাদেশ এর (২০০১ সাল) প্রতিষ্ঠাকালীন সহ সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেছেন।

বাংলাদেশের প্রাচীনতম নজরুল চর্চা ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান নজরুল একাডেমীর আজীবন সদস্য রেজা মতিন দুই দশক যাবৎ এই প্রতিষ্ঠানের প্রচার সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করে আসছেন। সম্প্রতি ভারত বাংলাদেশ নজরুল সম্মেলন ২০১৭ উপলক্ষে অগ্নিবীণা কলকাতার আমন্ত্রনে নজরুল একাডেমীর কর্মকর্তা হিসেবে পশ্চিমবঙ্গের ৮ টি জেলায় সফর করে এসেছেন।

রেজা মতিন বিটিভির তালিকাভুক্ত কন্ঠ শিল্পী হিসেবে নিয়মিত অংশগ্রহনের পাশাপাশি দেশের একাধিক চ্যানেলে নিয়মিত আধুনিক ও নজরুল সংগীত পরিবেশন করে থাকেন। গান গাইবার পাশাপাশি তিনি বিটিভি ও অন্যান্য চ্যানেলে বিভিন্ন সময়ে অনুষ্ঠান পরিকল্পনা, সমন্বয়কারী ও উপস্থাপকের সহকারী হিসেবে কাজ করেছেন।

এছাড়াও রাষ্ট্রীয়ভাবে আয়োজিত বঙ্গভবন ও জাতীয় সংসদ ভবনের দক্ষিন প্লাজায় মহান বিজয় দিবস ও স্বাধীনতা দিবসের অনুষ্ঠান সহ বিদেশী মেহমানদের সম্মানে আয়োজিত “নাগরিক সম্বর্ধনা ” অনুষ্ঠানে “অনির্বাণ শিল্পীগোষ্ঠীর” মাধ্যমে অংশ নিয়েছেন রেজা। বিদেশী মেহমানদের সম্মানে আয়োজিত অনুষ্ঠান গুলোর মধ্যে ছিল সাবেক জাতিসংঘের মহাসচিব জেভিয়ার পেরেজ দ্য কুয়েলার, চীনের প্রধানমন্ত্রী লি পেং, ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ফ্রাসোয়া মিতোরা, গিনির প্রেসিডেন্ট আহমেদ সেকেতুরে, মালদ্বীপের প্রেসিডেন্ট মামুন আবদুল গাইয়ুম, গাম্বিয়ার প্রেসিডেন্ট স্যার দাওদা জাওয়ারা, পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী বেনোজির ভুট্টো প্রমুখের নাম উল্লেখযোগ্য।

এছাড়াও রেজা মতিন দীর্ঘ ৩০ বছর পূর্বে প্রথম জাতীয় পর্যায়ে (১৯৯০ সালের ২৪ - ২৬ মে / ১৩৯৭ সালের ১১ - ১৩ জ্যৈষ্ঠ, তিনদিন ব্যাপী) দরিরামপুরে আয়োজিত জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের “জন্মজয়ন্তী উৎসবে” নজরুল একাডেমীর মাধ্যমে অংশ গ্রহণ করার সুযোগ পেয়েছিলেন তিনি।

রেজা মতিনের গাওয়া একটি আধুনিক গানের এ্যালবাম “হেলেন ভেংগেছে ট্রয়” ইতোমধ্যেই বাজারে এসেছে সাউন্ডট্রেকের ব্যানারে। তানসেন খানের সুর সংগীতে ঐ এ্যালবাম এর ৫ টি গানের কথা ও সুর রেজার নিজের করা। এ্যালবামটিতে আরো গান লিখেছেন কাওসার আহমেদ চৌধুরী, জসিম রায়হান,খন্দকার কামরুজ্জামান, গোলাম মোর্শেদ মানিক, খুশিউর রহমান ও এম এ মুঈদ।

রেজা মতিনের সংগীতে হাতেখড়ি স্বর্ণলতা সাংস্কৃতিক সংগঠনের প্রয়াত শিক্ষক হাসান আব্দুর রহমানের হাত ধরে। পরবর্তীতে নজরুল একাডেমী, কাজরী সংগীত একাডেমী, কোমল গান্ধার শিল্পীগোষ্ঠী প্রভৃতি সংগীত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ওস্তাদ সৈয়দ জাকির হোসেন, ওস্তাদ আখতার সাদমানী, শেখ লুতফুর রহমান, মোহাম্মদ আব্দুল লতিফ, সাদী মোহাম্মদ তকিউল্লাহ, মুজিবুল কাইয়ুম, ডালিয়া নওশীন, দিলরুবা আনাম, লিলি ইসলাম, ড. কৃষ্ণপদ মন্ডল, মীর নাজমুল হক, মোহাম্মদ দেলোয়ার হোসেন প্রমুখের কাছে উচ্চাঙ্গ, নজরুল, রবীন্দ্র, গজল গান শেখা সহ প্রখ্যাত সুরকার ও সংগীত পরিচালক সেলিম আশরাফের কাছে আধুনিক গানের তালিম পেয়েছেন।
এছাড়াও গানের উচ্চারণ এর ক্ষেত্রে দেশের বিশিষ্ট সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব মুস্তফা মনোয়ার এর কাছে তালিম পেয়েছেন তিনি।

রেজা মতিন বিভিন্ন সময়ে বেশ কিছু সাংস্কৃতিক প্রতিযোগীতায় অংশ নিয়ে সাফল্য লাভ করেছেন। এছাড়াও রেজা বিভিন্ন সময়ে বেশ কিছু সামাজিক- সাংস্কৃতিক সংগঠনের সাথে যুক্ত ছিলেন। এর মধ্যে অনির্বাণ শিল্পীগোষ্ঠী, বাংলাদেশ সংগীত পরিষদ, সারগাম শিল্পী গোষ্ঠীর প্রতিষ্ঠাতা, বাংলাদেশ সমাজ কল্যান কর্মীসংঘ, প্রভা শিল্পী গোষ্ঠী, অন্তরা শিল্পীগোষ্ঠীর নাম উল্লেখযোগ্য।

আজ এই রেজা মতিনের জন্মদিন। বিশেষ এই দিনে তার দীর্ঘায়ু কামনা করছি।


oranjee