ঢাকা, শুক্রবার, ১৫ নভেম্বর ২০১৯ | ১ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

 
 
 
 

মহাত্মা গান্ধীর আদর্শকে জনপ্রিয় করার নির্দেশ নরেন্দ্র মোদির

গ্লোবালটিভিবিডি ৪:১৭ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২০, ২০১৯

ছবি: সংগৃহীত

মহাত্মা গান্ধীর আদর্শকে দিকে দিকে ছড়িয়ে দিন। তাঁর কর্মকাণ্ডকে আরও জনপ্রিয় করুন।’ শনিবার নিজের বাসভবনে আমির, শাহরুখ, কঙ্গনা রানাওয়াত ও জ্যাকলিন ফার্নান্ডেজদের সঙ্গে আলোচনা করতে গিয়ে এই অনুরোধই করলেন প্রধানমন্ত্রী। মহাত্মা গান্ধীর ১৫০ তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে সরকারের উদ্যোগে দেশজুড়ে বিভিন্ন কর্মসূচি পালিত হচ্ছে। গতকাল সন্ধায় সেই সংক্রান্ত একটি অনুষ্ঠানে ভারতীয় চলচ্চিত্র জগতের বিভিন্ন বিশিষ্ট ব্যক্তিত্বদের সঙ্গে মিলিত হন নরেন্দ্র মোদি। তাঁর সরকারি বাসভবন লোককল্যাণ মার্গেই এই অনুষ্ঠানটি হয়। এখানে শাহরুখরা ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন সোনম কাপুর, পরিচালক রাজকুমার হিরানি, রাজকুমার সন্তোষী, আনন্দ এল রাই, নীতীশ তিওয়ারি অশ্বিনী আইয়ার তিওয়ারি, প্রযোজক বনি কাপুর ও একতা কাপুর-সহ বিশিষ্ট ব্যক্তিরা।

সেখানে বলি তারকাদের সঙ্গে কথা বলতে গিয়ে মহাত্মা গান্ধীর আদর্শ প্রচারে বলিউডের শিল্পীদের ভূমিকার ভূয়সী প্রশংসা করেন প্রধানমন্ত্রী। কিছু শিল্পী প্রচুর পরিশ্রম করেছেন বলেও উল্লেখ করেন। এপ্রসঙ্গে বলেন, ‘গান্ধীজির আদর্শ ও জীবন সাধারণ মানুষের মধ্যে তুলে ধরতে আপনারা সবাই দারুণ কাজ করছেন। এর ফলে বিশ্বজুড়ে যে প্রভাব পড়েছে তার পুরোটা হয়তো আপনারাও জানেন না। কখনও আপনাদের এই ধরনের সৃষ্টিশীল কাজে যদি সাহায্য করার সুযোগ পাই তাহলে আনন্দিত হব। আমি মনে করি সৃজনশীলতার অপরিসীম ক্ষমতা। জাতির চেতনাকে জাগ্রত করার জন্য এই সৃজনশীলতা অপরিহার্য। দীর্ঘদিন ধরেই ভারতীয় চলচ্চিত্র জগতের মানুষরা মহাত্মা গান্ধীর আদর্শকে ছড়িয়ে দেওয়ার কাজে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিয়ে এসেছেন। কীভাবে এটা আরও বাড়ানো যায় তাই নিয়ে চিন্তা করতে হবে।’ মহাত্মা গান্ধীর আদর্শ প্রচার করার পাশাপাশি ভারতীয় পর্যটন শিল্পের জন্য তারকাদের কিছু করার অনুরোধ করেন প্রধানমন্ত্রী।

বৈঠক শেষে মোদি টুইট করেন, জাতির জনকের জন্মদিন পালনের জন্য সবার থেকেই পরামর্শ নেওয়া জরুরি ছিল। এতে নতুন উদ্ভাবনী বা সৃজনশীল ভাবনা সামনে আসে। একই সঙ্গে দেশের শিল্প-সংস্কৃতিকেও উন্নত করে। আশাকরি আমরা সবাই মিলে মহাত্মাজির বার্তা বিশ্বের দরবারে পৌঁছে দিতে পারব।

এই অনুষ্ঠানের প্রসঙ্গে কথা বলতে গিয়ে আমির খান বলেন, ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দারুণ একটা সময় কাটালাম। তাঁর ভাবনাগুলি শুনেও ভাল লাগল। উনি খুবই অনুপ্রেরণাদায়ক, খুবই আন্তরিক।’

শাহরুখ খান বলেন, ‘আমি মনে করি ভারত ও বিশ্বের সামনে মহাত্মা গান্ধীর আদর্শ ফের তুলে ধরার সময় এসেছে। সিনেমা জগতের সঙ্গে যুক্ত মানুষরা এই বিষয়ে খুবই সচেতন। আমাদের কাজের মধ্যে দিয়ে বার্তা দেওয়ার বিষয়টি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। সবাইকে একত্রিত করার জন্য এটা দারুণ একটা উদ্যোগ। আমি সত্যিই বিশ্বাস করি গান্ধীজিকে রি-লোড করা দরকার। পৃথিবী বদলাচ্ছে, তাই আমাদের এখন দরকার গান্ধীজি ২.০।’

আরকে


oranjee