ঢাকা, শনিবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯ | ৬ আশ্বিন ১৪২৬

 
 
 
 

আসছে প্রাচ্যনাটের ‘পুলসিরাত’

গ্লোবালটিভিবিডি ৫:৫৩ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১২, ২০১৯

সংগৃহীত ছবি

‘পুলসিরাত’ নামে নতুন নাটক নিয়ে মঞ্চে আসছে প্রাচ্যনাট। ফিলিস্তিনি লেখক ঘাসান কানাফানির ‘মেন ইন দ্য সান’ উপন্যাস অবলম্বনে তৈরি নাটকটি অনুবাদ করেছেন মাসুমুল আলম। নাট্যরূপ দিয়েছেন মনিরুল ইসলাম রুবেল। নির্দেশনায় রয়েছেন কাজী তৌফিকুল ইসলাম ইমন।

গত দুই আড়াই মাস ধরে মহড়া করছেন কলাকুশলীরা। আগামী ১৩ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যা ৬টা ১৫ মিনিটে নগরীর মহিলা সমিতির নীলিমা ইব্রাহীম মিলনায়তনে নাটকটির উদ্বোধনী মঞ্চায়ন হবে। রাত ৮টায় একই মিলনায়তনে নাটকটির দ্বিতীয় মঞ্চায়ন হবে।

সারা বিশ্বে মানবপাচারের বিষয়টি উপজীব্য করে গড়ে উঠেছে নাটকটির গল্প। কাহিনীতে দেখা যায়, তিন বয়সের তিনজন মানুষ। আলাদা আলাদা উদ্দেশ্য নিয়ে ফিলিস্তিন থেকে কুয়েতে পাড়ি জমাতে চায় তারা।

উপন্যাসটির লেখক ঘাসান কানাফানির জীবনও অনেক কঠিন ছিল। প্যালেস্টাইন থেকে তিনি লেবানন গিয়েছিলেন। লেবানন থেকে সিরিয়া। সেখানে বাস্তু শিবিরে ছিলেন তিনি। পরবর্তীতে এক বোমা হামলায় মৃত্যু হয় তার। তার সংগ্রামের জীবনও প্রেরণা জুগিয়েছে। তা ছাড়া সবাই যখন একদিকে ছুটছেন সেখান থেকে একটু ভিন্ন দিকে হাঁটার পরিকল্পনা থেকে নাটকের বিষয়টি প্রাচ্যনাট বেছে নিয়েছে বলেও জানান নির্দেশক কাজী তৌফিকুল ইসলাম ইমন।

ইমন জানান, ভাগ্যান্বেষণের জন্য ফিলিস্তিন থেকে স্বপ্নের কুয়েতে পাড়ি জমাতে চায় আবু কায়েস, আসাদ ও মারওয়ান।

অন্যদিকে ষোলো বছরের মারওয়ান স্কুলের পড়াশোনা ছেড়ে নিজের পরিবারের দায়িত্বের চাপে পাড়ি দিতে চায় কুয়েতে। তার বড় ভাই কুয়েত থাকে। এক সময় পরিবারের জন্য টাকা পাঠালেও বিয়ে করে তা বন্ধ করে দেয়। তার বাবা সন্তানদের ভরণ পোষণে অপারগ হয়ে সচ্ছল জীবনের আশায় এক পঙ্গু মহিলাকে বিয়ে করে আলাদা হয়ে যায়। তাই মারওয়ান পরিবারকে বাঁচাতে অর্থ উপার্জনের স্বপ্ন নিয়ে কুয়েত পাড়ি দিতে চায়। একপর্যায়ে আগস্ট মাসের প্রচণ্ড গরমে, রোদে পুড়ে মরুভূমির পথে শুরু হয় তাদের যাত্রা। তিনটি হতভাগ্য বিড়ম্বিত জীবন ছুটে চলে স্বপ্নময় এক সচ্ছল জীবনের প্রত্যাশায়, ছুটে চলে এক পুলসিরাত!

নাটকটির বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করছেন আজাদ আবুল কালাম, শাহরিয়ার সজীব, মনিরুল ইসলাম রুবেল, সাইফুল ইসলাম জার্নাল, চেতনা রহমান ভাষা প্রমুখ।

সেট ডিজাইন করেছেন শাহীনুর রহমান, সংগীত পরিকল্পনায় নীল কামরুল, আলোক পরিকল্পনায় বাবর খাদেম।

এএইচ/এমএস


oranjee