ঢাকা, শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০১৯ | ৬ বৈশাখ ১৪২৬

 
 
 
 

গ্লোবাল টিভি অ্যাপস

বিষয় :

ঢাকা

  • ইলিশ ধরা ৭ থেকে ২৮ অক্টোবর নিষিদ্ধ
  • গ্লোব এগ্রিকালচারাল কর্পোরেশনের অসাধারণ এক কৃষি-খামার
  • শহরেও টবে চাষ করা যায় পুষ্টিকর পালং
  • নোয়াখালীর চরাঞ্চলে সূর্যমুখী চাষে সাফল্য

বাংলাদেশে ধানের উৎপাদন বাড়াতে ইরি’র সহায়তা চান প্রধানমন্ত্রী

গ্লোবালটিভিবিডি ৪:৪১ অপরাহ্ণ, মার্চ ২১, ২০১৯

ছবি- সংগ্রহ

দেশে ধানের উৎপাদন বৃদ্ধির জন্য বাংলাদেশ ধান গবেষণা ইন্সটিটিউটের (বিআরআরআই) সঙ্গে সহযোগিতা জোরদার করতে আন্তর্জাতিক ধান গবেষণা ইনস্টিটিউটের (ইরি) প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বৃহস্পতিবার (২১ মার্চ) প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে ইরি’র মহাপরিচালক ড. ম্যাথিউ মোরেল সাক্ষাৎ করতে আসলে প্রধানমন্ত্রী এ আহ্বান জানান।

বৈঠকের পর সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত ভাষণ লেখক মো. নজরুল ইসলাম।

বিপুল পরিমাণে লবণ, ঠান্ডা ও খরা-সহনশীল জাতের ধানের উদ্ভাবন এবং গভীর পানির ধান জাতের উন্নতির জন্য গবেষণা শক্তিশালী করার প্রয়োজনীয়তার ওপর গুরুত্বারোপ করেন প্রধানমন্ত্রী।

তিনি দেশে অব্যাহতভাবে ধান চাষের উৎপাদন ক্ষমতা বাড়ানোর ওপর জোর দেন, কারণ উর্বর জমির সংখ্যা ক্রমশ হ্রাস পাচ্ছে।

প্রধানমন্ত্রীকে উদ্ধৃত করে নজরুল বলেন, আমাদের কৃষকরা খুবই স্মার্ট এবং দ্রুত শিখতে পারে। তারা সহজেই প্রযুক্তি গ্রহণ করতে পারে।

ফসলের ধরন প্রসঙ্গে শেখ হাসিনা বলেন, উত্তরাঞ্চলে গম, ভুট্টা, ডাল ও অন্যান্য ফসল চাষ করা হয়, যেগুলোতে কম পানি প্রয়োজন।

শেখ হাসিনা দক্ষিণ অঞ্চলে চাল উৎপাদন বাড়ানোর জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দেন।

তিনি পরিবেশ রক্ষা করার জন্য সেচ ব্যবস্থায় ভূগর্ভস্থ পানির ওপর নির্ভরশীলতা কমানোর জন্য জন্য ভূপৃষ্ঠের পানির ওপর নির্ভরশীলতা বাড়ানোর ওপর গুরুত্বারোপ করেন। সেচের জন্য নদী, খাল ও বিলসহ দেশের পানির উৎসগুলো পুনর্নির্মাণ করা হচ্ছে বলে জানান তিনি।

ইরি ও বিআরআরআই এর মধ্যে বিদ্যমান সহযোগিতার প্রশংসা করেন প্রধানমন্ত্রী।

ইরি’র মহাপরিচালক বলেন, বাংলাদেশের ধানের উৎপাদন বাড়ানোর জন্য বিআরআরআই এর সঙ্গে একটি সহযোগী কর্মসূচি গ্রহণে আগ্রহী তারা।

তিনি বলেন, ইরি’র সহযোগিতামূলক কর্মসূচির আওতায় ১৪ দফা কর্ম পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করা হলে, বাংলাদেশ ধান উৎপাদনে উচ্চ প্রবৃদ্ধি অর্জন করতে এবং দেশের খাদ্য নিরাপত্তা বজায় রাখতে সক্ষম হবে। সূত্র: ইউএনবি

এমএস


oranjee