ঢাকা, শনিবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯ | ৬ আশ্বিন ১৪২৬

 
 
 
 

এদেশের মানুষ তাকে হত্যা করবে এটা বিশ্বাস করতেন না বঙ্গবন্ধু : শেখ হাসিনা

গ্লোবালটিভিবিডি ৭:৫৪ অপরাহ্ণ, আগস্ট ৩০, ২০১৯

ফাইল ছবি

আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, এদেশের মানুষ তাকে হত্যা করবে -এটা বিশ্বাস করতেন না বঙ্গবন্ধু।

শুক্রবার বিকেলে রাজধানীর আগারগাঁওয়ে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ আওয়ামী লীগ আয়োজিত জাতীয় শোক দিবসের আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন।

তিনি আরও বলেন, ১৫ আগস্টের পর বঙ্গবন্ধুর নাম ইতিহাস থেকে মুছে ফেলার চেষ্টা করা হয়েছিল। ৭ই মার্চের ভাষণকে মুছে ফেলার চেষ্টা করা হয়েছিল।

বঙ্গবন্ধুকে স্বপরিবারে হত্যা করে কারবালার ঘটনার পুনরাবৃত্তি হয়েছে উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, এই দেশের মানুষ এমন একজনকে হত্যা করলো যে এই জাতিকে একটি দেশ দিয়ে গেল। জাতির পিতাকে হত্যার মধ্যদিয়ে রাতারাতি এ দেশ একটি খুনি রাষ্ট্রে পরিনত হলো।

শেখ হাসিনা বলেন, বিএনপি বাংলাদেশের আদর্শের রাজনীতি ধ্বংস করে খুনের রাজত্ব কায়েম করেছিলো।

তিনি আরো বলেন, জিয়াউর রহমান ক্ষমতায় এসে যুদ্ধাপরাধীর বিচার বন্ধ করল। ট্রাইব্যুনাল বন্ধ করল। মন্ত্রিসভা যখন গঠন করল, সেখানে বঙ্গবন্ধুর খুনিদের পুরস্কৃত করল, স্বাধীনতা বিরোধীদের মন্ত্রিসভায় স্থান দিলো। বিএনপির একটা কথা জানা উচিত, জিয়ার ক্ষমতা দখলকে হাইকোর্ট অবৈধ ঘোষণা করেছে। এজন্য বিএনপির সৃষ্টিটাও অবৈধ হয়ে যায়। বাংলাদেশের রাজনীতিকে কলুষিত করেছে তারা। আদর্শের রাজনীতি ধ্বংস করে খুনের রাজত্ব কায়েম করেছিলো।

তিনি আরও বলেন, দেশের ভেতরে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মী যারা বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডে জড়িত ছিল, তারাও পরবর্তীতে জিয়ার সঙ্গে গেছে। অনেকে এখনো বেঁচে আছে, বড় বড় কথাও বলে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, পঁচাত্তরের পর যারাই ক্ষমতায় এসেছে তারাই ১৫ আগস্টের খুনিদের মদদ দিয়েছে। যেভাবে জিয়াউর রহমান অবৈধভাবে ক্ষমতা দখল করে খুনিদের দূতাবাসে চাকরি দিয়েছিল সেভাবে খালেদা জিয়াও পুনর্বাসন করেছেন। এরশাদও খুনিদের মদদ দিয়েছে পুরস্কৃত করেছে।

এমএস


oranjee