ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই ২০১৯ | ৮ শ্রাবণ ১৪২৬

 
 
 
 

৫ দিনের সফরে চীন যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী

গ্লোবালটিভিবিডি ১১:০৩ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ০১, ২০১৯

ফাইল ছবি

পাঁচ দিনের সফরে আজ চীন যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বিশ্ব অর্থনৈতিক ফোরামের সভায় অংশ নেয়া, ৮টি বিষয়ে চুক্তি ও সমঝোতা স্মারক সই, চীনের প্রেসিডেন্ট ও প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক বৈঠকে অংশ নেয়াসহ আলোচনা হবে রোহিঙ্গা ইস্যুতে।

সোমবার (১ জুলাই) বিকাল ৫টায় বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের বিজি-১৭২০ বিশেষ ফ্লাইটে প্রধানমন্ত্রী চীনের উদ্দেশে রওনা হবেন।

বিশ্লেষকদের মতে, দুদেশের বহুমাত্রিক সম্পর্ক জোরদারে এ সফর এমনিতেই গুরুত্বপূর্ণ তবে তারচেয়েও গুরুত্বপূর্ণ, রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে চীনের তৎপরতা বাড়বে।

পহেলা জুলাই চীন পৌঁছেই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অংশ নেবেন বিশ্ব অর্থনৈতিক ফোরামের গ্রীষ্মকালীন সভায়। সভা শেষে চীনের সঙ্গে উচ্চ পর্যায়ের একটি বৈঠকে, বিদ্যুৎ, অর্থনীতি, কারিগরি, পর্যটন, সংস্কৃতিসহ ৫টি বিষয়ে চুক্তি ও ৩টি বিষয়ে সমঝোতা স্মারক সই অনুষ্ঠানে অংশ নেবেন তিনি। এই সফর নিয়ে আশাবাদি বিশ্লেষকরা।

প্রধানমন্ত্রীর সফর প্রসঙ্গে চীনে বাংলাদেশের সাবেক রাষ্ট্রদূত মুনশি ফয়েজ আহমদ বলেন, 'আমরা সহযোগিতার ক্ষেত্র গুলো দিন দিন বাড়াচ্ছি। এ সহযোগিতা দু পক্ষেরই উপকারে আসছে।'

চীনের প্রেসিডেন্ট ও প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আলাদাভাবে দ্বিপাক্ষিক বৈঠক করবেন শেখ হাসিনা। নানান বিষয়সহ আলোচনায় স্থান পাবে রোহিঙ্গা ইস্যু। মুনশি ফয়েজ আহমদ আরও বলেন,বাংলাদেশ থেকে যেয়ে একখানে থাকবে, সেখান থেকে তাদেরকে নিজ দেশে ফিরিয়ে নেয়া হবে। মধ্যবর্তী ক্যাম্প যেটাকে বলছে সেটাকে বড় করে করুক না। আন্তর্জাতিক একটা টিম থাকুক। বিভিন্ন দেশ এবং প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধি নিয়ে এবং সেটা চিনের নেতৃত্বেই হোক।'

বাংলাদেশের সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক দিলীপ বড়ুয়া বলেন, সাথে সাথে কিছু অর্জন না হলেও, আমরা মনে করি রোহিঙ্গা ইস্যু নিয়ে যে অচলাবস্থা সৃষ্টি হয়েছে, সে বরফ গলবে বলে বিশ্বাস করি।

রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে চীন যে অন্যতম কুশীলব দেশটি নিজেও জানে। তাই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এবারের সফরের মাধ্যমে চীন এক্ষেত্রে আরো তৎপর হবে বলে মনে করেন এই দুই বিশ্লেষক।

এমএস


oranjee

আরও খবর :